বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কাঁচপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ ওমর বলেন, হাইওয়ে পুলিশের প্রধান কাজ মহাসড়ক যানজটমুক্ত রাখা। কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড শিল্প এলাকার মধ্যে হওয়ার কারণে এ স্ট্যান্ডে দিনরাত মানুষের উপচে পড়া ভিড় থাকে। হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কের ওপর যানবাহন পার্কিং করায় এবং মহাসড়কে অবৈধ বিভিন্ন স্থাপনার কারণে প্রতিদিন মানুষকে যানজটে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, মহাসড়কের অর্ধেক জায়গা দখল করে হাইওয়ে পুলিশ ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন যানবাহন রেখেছে। থানার প্রধান ফটকের দুই পাশে মহাসড়ক দখল করে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন যানবাহন তো আছেই, তার ওপর মহাসড়ক দখল করে বিভিন্ন দোকানপাট বসিয়েছেন হকাররা। থানা ও বাসস্ট্যান্ডের সামনের রাস্তাটুকু পার হতে অপেক্ষা করতে হয় দীর্ঘ সময়।

ঢাকার বনশ্রী থেকে ছেড়ে আসা একটি পিকআপ ভ্যানের চালক আলী হোসেন বলেন, প্রতিদিন কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ডে এসে তাঁদের এক থেকে দেড় ঘণ্টা যানজটে পড়ে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। মূলত হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কের ওপর যানবাহন পার্ক করে রাখার কারণেই এই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। একই কথা জানিয়ে চট্টগ্রামগামী একটি বাসের চালক কাওসার আলী বলেন, এমনিতেই কয়েক দিন ধরে আগের চেয়ে যানজট বেড়েছে। থানার সামনে হাইওয়ে পুলিশের গাড়ি রাখার কারণে সেখানে ভোগান্তি আরও বেশি। অন্তত ঈদ উপলক্ষে রাস্তা যানজটমুক্ত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন শ্যামলী পরিবহনের কাউন্টারের ক্যাশিয়ার আলী আমজাদ।

এ বিষয়ে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবীর হোসেন বলেন, পুলিশের হাতে আটক ক্ষতিগ্রস্ত যানবাহন পার্ক করে রাখার জন্য কোনো নির্দিষ্ট জায়গা না থাকার কারণে বাধ্য হয়ে মহাসড়কের ওপর যানবাহন পার্ক করে রাখছেন তাঁরা। হাইওয়ে পুলিশের যানবাহন পার্ক করে রাখার জায়গার ব্যবস্থা হলে সমস্যার সমাধান হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন