বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সোমবার সকাল ৯টা ৫ মিনিটে বালুতুপা এলাকায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রয়াত জামাল হকের দুই ছেলে হোসেন ও জোবায়ের তাঁর চাচা প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মান্নানের ছেলে আবদুর রহমানের মাথায় ধারালো দা দিয়ে আঘাত করেন। এ সময় মামলার অন্য আসামিরা লাঠি দিয়ে আবদুর রহমানের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করেন। এতে তিনি মাথায় আঘাত পান। ঘটনার পর স্বজনেরা তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাঁর মাথায় অন্তত ২৪টি সেলাই দেওয়া হয়।

মামলার বাদী আহত আবদুর রহমানের স্ত্রী দিলারা আলো বলেন, ‘আমাদের বসতভিটার জায়গা দখল করার জন্য আমার স্বামীকে হত্যার জন্য মাথায় দা দিয়ে কোপ দেওয়া হয়। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।’

আবদুর রহমানের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ প্রসঙ্গে হোসেন ও জোবায়েরের মুঠোফোনে মঙ্গলবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত একাধিকবার ফোন করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়। মঙ্গলবার বিকেলে তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে তাঁদের বাড়িতে গিয়ে দরজায় তালা ঝুলতে দেখা গেছে। তবে মামলার বাদী ও আসামিদের চাচা আমিনুল হক বলেন, ‘ঘটনার পর হোসেন ও জোবায়ের গা ঢাকা দিয়েছে। জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। এখন ওরা মামলা করেছে। আমরা মিটমাট করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি।’

এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন