বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

র‍্যাব-৪–এর কমান্ডার মোজাম্মেল হক বলেন, ‘বনি আমিন র‍্যাবের হেফাজতে আছেন। এটা তেমন কিছু না। তাঁর কাছ থেকে কিছু তথ্য নেওয়ার জন্য তাঁকে নিয়ে এসেছি। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে আমরা অবগত আছি। র‍্যাবের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পেরেছি, বনি আমিন এখন র‍্যাব-৪–এর হেফাজতে আছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব-৪। এর বেশি কিছু বলতে রাজি হয়নি তারা (র‍্যাব)।’

যোগাযোগ করা হলে বনি আমিনের বাবা আবদুল জলিল প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি শুধু জেনেছি, আমার ছেলেকে র‍্যাব ধরে নিয়ে গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক ফোন করে জানিয়েছেন, আমি যেন র‍্যাবের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য প্রস্তুত থাকি।’

বনি আমিনের সঙ্গে একই মেসে ভাড়া থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক শিক্ষার্থী জানান, গতকাল রাতে র‍্যাব-৪ পরিচয় দিয়ে কয়েকজন লোক মেসে ঢুকে তাঁদের আলাদা একটি কক্ষে রেখে বনি আমিনের কক্ষে তল্লাশি চালান। পরে বনি আমিনকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যান তাঁরা। এ সময় তাঁরা বাধা দিলে আগন্তুকেরা নিজেদের র‍্যাব-৪–এর সদস্য বলে পরিচয় দেন ও দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন