ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, বরিশাল নগরের চকবাজার এলাকায় বাটার শোরুমে বিক্রীত জুতার মোড়কে প্রকৃত মূল্য ৮৯৯ টাকার ট্যাগের ওপর নতুন করে ৯৯৯ টাকার ট্যাগ বিক্রি করা হয়েছে—এ মর্মে একজন ভোক্তা লিখিত অভিযোগ করেন। এরপর সরেজমিন তদন্তে অভিযোগটি প্রমাণিত হওয়ায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ অনুযায়ী বাটার ওই শোরুমকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী, জরিমানাকৃত অর্থের ২৫ শতাংশ অর্থ (৭ হাজার ৫০০ টাকা) অভিযোগকারী ভোক্তাকে দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া নগরের উপকণ্ঠে টিয়াখালী বাজারে রোবো প্লাস ড্রিংকস নামের একটি প্রতিষ্ঠান নকল খাদ্যপণ্য তৈরি ও বিক্রির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। নথুল্লাবাদে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার পরিবেশনের কারণে ২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয় একটি খাবার হোটেলকে।

default-image

অভিযানের সময় নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনালে টিকিটের দাম ও নগরের বিভিন্ন স্থানে কাপড়, জুতা, তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে পণ্যের দাম যথাযথ আছে কি না, সেটা তদরক করা হয়। এ সময় বেশ কিছু ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা হয়। পাশাপাশি ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা এবং মাস্ক পরার জন্য অনুরোধ করা হয়। উপস্থিত নাগরিকদের মধ্যে ভোক্তা অধিকার আইনসংক্রান্ত লিফলেট বিতরণ করা হয়।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সুমি রানী মিত্র, সাফিয়া সুলতানা এবং বরিশাল জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. শাহ শোয়াইব মিয়া এ অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় র‌্যাব–৮–এর একটি দল অভিযান পরিচালনায় সহযোগিতা করে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন