default-image

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় ট্রাক ও শ্যালো ইঞ্জিনচালিত করিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষে বাবা-ছেলে নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছে করিমনে থাকা অপর এক শিশু। আজ রোববার সকাল আটটার দিকে উপজেলার লোকনাথপুর পুলিশ বক্সের পাশে চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত দুজন হলেন দামুড়হুদা উপজেলার হাউলী ইউনিয়নের ডুগডুগি গ্রামের করিমনচালক আসানুর রহমান (৩৫) ও তাঁর ছেলে আজম আলী (১১)। আহত হয়েছে একই গ্রামের জামাত আলীর ছেলে জীবন রহমান (১১)। সে ওই করিমনের যাত্রী ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দর্শনা রেলগেটের কাছে সরকারি উদ্যোগে গৃহহীন পরিবারের জন্য ঘর তৈরির কাজ চলছে। হাউলী ইউনিয়ন পরিষদের গুদাম থেকে সিমেন্ট নিয়ে করিমন চালিয়ে আসানুর রহমান দর্শনায় যাচ্ছিলেন। তাঁর সঙ্গে ছিল তাঁর ছেলে আজম আলী ও ছেলের বন্ধু জীবন রহমান। দর্শনা রেলগেটে পৌঁছানোর ২০০ গজ আগে লোকনাথপুর পুলিশ বক্সের কাছে চুয়াডাঙ্গামুখী চলন্ত ট্রাকের সঙ্গে করমিনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই আজম আলী মারা যায়। আহত আসানুর ও জীবনকে উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক আসানুরকে মৃত ঘোষণা করেন। জীবন রহমান এখনো সেখানে চিকিৎসাধীন।

বিজ্ঞাপন

দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল খালেক বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাকটি জব্দ করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর অসুস্থ হয়ে পড়ায় ট্রাকচালক ইয়াসিন আলীকে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনসুর ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দিলারা রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তাঁরা শোকসন্তপ্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন