বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জাহিদের জবানবন্দির বরাত দিয়ে পুলিশ জানিয়েছে, ওই নারী বুধবার রাতে কারখানার কাজ শেষে বাবার বাড়ি যাওয়ার জন্য বাঁশবাড়িয়া বাজার এলাকায় নামেন। তাঁকে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে গাড়িতে তোলেন মামলার ১ নম্বর আসামি। গাড়িটির চালকের আসনে ছিলেন ২ নম্বর আসামি। ওই নারীকে বাঁশবাড়িয়া সৈকতের বেড়িবাঁধ এলাকায় নিয়ে জাহিদসহ তিনজন মিলে পর্যায়ক্রমে তাঁকে ধর্ষণ করেন।

এ সময় নারীটির চিৎকারের স্থানীয় একটি কারখানার নিরাপত্তাপ্রহরী এগিয়ে এসে জাহিদকে ধরে ফেলেন। প্রহরী পুলিশের কাছে জাহিদ ও নারীকে হস্তান্তর করেন।
এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে ওই নারী বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা করেন।

সেই মামলায় জাহিদকে গ্রেপ্তার দেখানো হয় এবং তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তদন্ত ও গ্রেপ্তারের প্রয়োজনে ধর্ষণ মামলার অপর দুই আসামির নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ। ওই নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন