বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শাহজাহান ভূঁইয়ার ভাষ্য, তিনি বুধবার রাতে নির্বাচনী প্রচারণা শেষে রাত সাড়ে নয়টায় পালপাড়া গ্রামে তাঁর স্কুলশিক্ষক সিরাজুল ইসলামের বাসায় যান। রাত ১১টায় বাড়ি ফেরার পথে অপর স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহেল পাটোয়ারী ও তাঁর অনুসারীরা হামলা করেন। তিনিসহ ছয়জন আহত হন। আজ বেলা ১১টায় হাসপাতালে ছাড়েন তিনি। নির্বাচনী প্রচারণার স্বার্থে পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার আগেই হাসপাতাল থেকে চলে এসেছেন। কষ্ট হলেও অসুস্থ শরীরে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাবেন। আপাতত আইনি কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না।

আজ সকালে হাসপাতালে আহত শাহজাহান ভূঁইয়াকে দেখতে যান বর্তমান চেয়ারম্যান ও নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী খলিলুর রহমান তালুকদার। আগামী রোববার এই ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এই অভিযোগ অস্বীকার করে সোহেল পাটোয়ারী বলেন, এ ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। শাহজাহান ভূঁইয়া চশই গ্রামের নির্বাচনী প্রচারণায় গেলে স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এতে কয়েকজন আহত হন। তিনি ও তাঁর সমর্থকেরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন না।

কুমিল্লার জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল রানা বলেন, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। তদন্ত চলছে। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন