বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে সাহিদার দুই ভাই রাতে সুমা বেগমের ঘরে ঢুকে রামদার পেছন দিয়ে দুপা থেঁতলে দেন।

আহত সুমা বেগম বলেন, রাতে ভাশুরের দুই ছেলে হাচান (৩০), হোচেন (২৫) ও হাসিব (১৬) রামদা হাতে নিয়ে ঘরে ঢোকে। রামদার পেছন দিয়ে তাঁর দুই পা পিটিয়ে থেঁতলে দেয়। এ সময় সুমার মা খাদিজা বেগম ও ছেলে মিরাজ বাধা দিতে এলে তারাও হামলার শিকার হয়ে আহত হয়।

স্বজনেরা আহত অবস্থায় তাঁদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক খাদিজা বেগমকে বরিশালের শের-ই–বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

রাজাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা কনকপ্রভা বলেন, সাহিদা আক্তারের কানে ক্ষত হয়েছে। সেখানে ৮ থেকে ১০টি সেলাই দিতে হয়েছে। সুমা বেগমের পায়ে জখম রয়েছে। এক্স-রে রিপোর্ট দেখে বিস্তারিত বলা যাবে।

রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, উভয় পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন