বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সরেজমিন দেখা যায়, আজ সকাল সাড়ে আটটা থেকে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। তবে কোনো হতাহতের সন্ধান পাওয়া যায়নি। একই সঙ্গে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা ফেরির সঙ্গে ডুবে যাওয়া যানবাহন উদ্ধারে অভিযান চালায়। এ সময় স্থানীয় উৎসুক লোকজন উদ্ধার অভিযান দেখতে সেখানে ভিড় করেন। এতে উদ্ধারকাজ কিছুটা বাধাগ্রস্ত হয়। পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাঁদের সেখান থেকে সরিয়ে দেন।

সকালে উদ্ধারকাজ পরিদর্শনে আসেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) পরিচালক (বাণিজ্য) এস এম আশিকুজ্জামান। পাটুরিয়া ভাসমান কারখানায় তাঁর সঙ্গে কথা হলে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ডুবে যাওয়া ফেরিটি উদ্ধারে শক্তিশালী উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয়’ চাঁদপুর থেকে রওনা হয়েছে। শুক্রবার সকালের মধ্যে উদ্ধারকারী জাহাজটি পাটুরিয়ায় পৌঁছানোর সম্ভাবনা আছে।

ঘাটসংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল নয়টার দিকে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ঘাট থেকে ১৭টি পণ্যবাহী যানবাহনসহ কয়েকটি মোটরসাইকেল নিয়ে আমানত শাহ ফেরিটি ছেড়ে আসে। মাঝনদীতে আসার পরপরই ফেরির সামনের বাঁ দিকের ছিদ্র দিয়ে পানি উঠতে থাকে।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ঘাটের পন্টুনে ভেড়ামাত্রই ফেরিতে তিনটি পণ্যবাহী যানবাহন দ্রুত ফেরি থেকে নেমে যায়। এ সময় আরেকটি পণ্যবাহী গাড়ি ফেরি থেকে নামার সময় ফেরিটির এক পাশ কাত হয়ে যায়। পরে গাড়িটি নদীতে পড়ে যায়। এর পরপরই ফেরিতে থাকা অন্যান্য যানবাহন নিয়ে পন্টুনের কাছে পদ্মা নদীতে ফেরিটি ডুবে যায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন