বিজ্ঞাপন

দৌলতদিয়া ঘাটের তত্ত্বাবধায়ক নুরুল আনোয়ার মিলন বলেন, সকাল পৌনে ৮টার দিকে ৩২ জন যাত্রী নিয়ে প্রথম লঞ্চ ঘাটে এসে ভেড়ে। দৌলতদিয়া ঘাট থেকে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মাত্র ১৮ জন যাত্রী নিয়ে লঞ্চ ছেড়ে দেয়। এখন পর্যন্ত যাত্রীদের তেমন কোনো চাপ পড়েনি।

ঘাটে হ্যান্ডমাইক নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীদের নামার আহ্বান জানাচ্ছেন বিআইডব্লিউটিএর আরিচা কার্যালয়ের ট্রাফিক পরিদর্শক আফতাব হোসেন। তিনি বলেন, ‘দেড় মাস পর লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। আমরা মুখে মাস্ক পরে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীদের লঞ্চে চলাচলের অনুরোধ জানাচ্ছি।’

এদিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দূরপাল্লার পরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। রাজবাড়ী থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী সৌহার্দ্য পরিবহনের সুপারভাইজার মোসলেম উদ্দিন বলেন, ‘প্রতি দুই সিটে একজন করে যাত্রী নেওয়া হচ্ছে। প্রথম দিন তো যাত্রীদের তেমন চাপ নেই। এ ছাড়া রয়েছে প্রচণ্ড গরম।’

default-image

অপর দিকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে যাত্রীদের তেমন ভিড় নেই। আসা-যাওয়ার পথে কোনো ফেরিতে ভিড় নেই। স্বাভাবিক গতিতেই যাত্রী ও যানবাহন পারাপার হচ্ছে। মাঝেমধ্যে দৌলতদিয়া ঘাট থেকে এক-দুটি গাড়ি নিয়ে ফেরি ছেড়ে যাচ্ছে। প্রতিটি ঘাটে ফেরিগুলো যানবাহনের জন্য অপেক্ষা করছে। সকাল সোয়া ৯টার দিকে আমানত শাহ নামের রো রো ফেরি মাত্র ২টি মাইক্রোবাস নিয়ে দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ঘাট থেকে ছেড়ে যায়।

ঘাটে অপেক্ষমাণ ফেরি মাধবীলতার কোয়ার্টার মাস্টার জাকারিয়া হোসেন বলেন, গতকাল রোববার থেকে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ নেই। ঘাটে যে গাড়ি আসছে, সরাসরি ফেরিতে গিয়ে উঠছে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন