বিজ্ঞাপন

আজ সকালে সিলেট রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, সিলেট থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার জন্য জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস প্ল্যাটফর্মে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ট্রেনটি গতকাল রোববার রাত থেকেই ধুয়েমুছে প্রস্তুত করা হয়। প্রায় দেড় মাস টেন চলাচল না করায় রেললাইন ও প্ল্যাটফর্মে ঘাস জমেছে। রেলওয়ের এক শ্রমিককে সেসব ঘাস পরিষ্কার করছিলেন।

রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, আজ সিলেট-ঢাকা রুটে দুটি ও সিলেট-চট্টগ্রাম রুটে চলবে একটি ট্রেন। ঢাকার উদ্দেশে পারাবত এক্সপ্রেস বেলা ৩টা ৪৫ মিনিটে এবং চট্টগ্রামের উদ্দেশে উদয়ন এক্সপ্রেস ছেড়ে যাবে রাত ৯টা ৪০ মিনিটে। যাত্রীবাহী ট্রেনগুলোয় অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে চলাচল করবে। স্টেশনের অভ্যন্তরে কাউকে মাস্ক ছাড়া প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না এবং মাস্ক ছাড়া কেউ ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবেন না।

সিলেট রেলস্টেশনের ব্যবস্থাপক মো. খলিলুর রহমান বলেন, আজ থেকে সিলেট-ঢাকা রুটে পারাবত এক্সপ্রেস ও জয়ন্তিকা এবং সিলেট-চট্টগ্রাম রুটে উপবন এক্সপ্রেস চলাচল করবে। কাউন্টারে কোনো টিকিট বিক্রি হচ্ছে না। যাত্রীদের টিকিট অনলাইন ও মোবাইল অ্যাপে কাটতে হবে। ট্রেনগুলোর মোট আসনসংখ্যা থাকে প্রায় ৭০০। এর মধ্যে প্রতিটি ট্রেন অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে চলাচল করবে। যাত্রীসহ সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে।

করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বিধিনিষেধ আরোপ করে গত ৫ এপ্রিল সরকার সারা দেশে দূরপাল্লার বাস, ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে, যা ৬ এপ্রিল থেকে কার্যকর ছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন