বিজ্ঞাপন

একদিন আঁধার কেটে যাবে, আলো আসবেই—এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে ফেসবুকে উপজেলাবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রায়গঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ। তাঁর পোস্টারে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, প্রয়াত জাতীয় চার নেতার অন্যতম এম মনসুর আলী, প্রয়াত স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম, সিরাজগঞ্জ-১ ও সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ যথাক্রমে তানভীর শাকিল ও মো. আবদুল আজিজ, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ছবি রয়েছে।

উপজেলার ব্রহ্মগাছা ইউপির চেয়ারম্যান মো. গোলাম ছরওয়ার তাঁর ফেসবুক ওয়ালে ‘করোনাকে ভয় নয়, সচেতনতার মাধ্যমে করব জয়’—এমন প্রত্যয় ব্যক্ত করে ইউনিয়নবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তাঁর পোস্টারে নিজের ছবিসহ বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ছবি শোভা পাচ্ছে।

নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে শাসক নয়, সেবক হয়ে ইউনিয়নবাসীর পাশে থাকার প্রত্যয় নিয়ে ফেসবুক আইডিতে ইউনিয়নবাসীকে ঈদ মোবারক জানিয়েছেন উপজেলার ধামাইনগর ইউপির আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী মো. নূরুল হক। তাঁর পোস্টারে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিম, প্রয়াত স্থানীয় সাংসদ মো. ইসহাক হোসেন তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের ছবি শোভা পাচ্ছে।

এ ছাড়া আরও অনেকের ফেসবুক ওয়ালে ঈদের শুভেচ্ছা দেখা গেছে। সিরাজগঞ্জ জেলা শহর থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকাতেও জনপ্রতিনিধিসহ নানা পেশার প্রতিনিধিদের ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে দেখা গেছে।

উপজেলার সোনাখাড়া, ধুবিল ও ঘুড়কা ইউপির চেয়ারম্যান যথাক্রমে আবু হেনা মোস্তফা কামাল, হাসান ইমাম তালুকদার ও মো. জিল্লুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাদী আলমাজী, আওয়ামী কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, উপজেলার সরকারি বেগম নূরুন নাহার তর্কবাগীশ কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মো. আবদুল মোত্তালেব সেখ, পাঙ্গাসী ইউপির আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী মো. রফিকুল ইসলাম বিজ্ঞাপন দিয়ে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

স্থানীয় একটি উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষক সেলিম রেজা খন্দকার আজ মঙ্গলবার সকালে প্রথম আলোকে বলেন, একদিক থেকে ভালো হয়েছে। ভবনের দেয়াল আর নোংরা হয় না। মানুষ এখন ভার্চ্যুয়াল জগতে, তাই ঈদের শুভেচ্ছা জানানো মানুষও সেখানেই উপস্থিত হয়েছেন। এতে খরচ, পরিশ্রম—সবই কমে গেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন