বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শিশুর পরিবারের সদস্যরা রহম আলীর বাড়িতে গিয়ে তাঁর বড় ভাইকে ঘটনাটি জানিয়ে নালিশ করেন। সুবিচারের আশ্বাস দিলে শিশুটির পরিবার সেখান থেকে চলে আসে। রাত সাড়ে ১০টার দিকে শিশুটির পরিবার তাকে ধরমপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। চিকিৎসকেরা ওই শিশুকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে নেওয়ার পরামর্শ দেন।

ঘটনার পর থেকে রহম আলী পলাতক। তাঁর স্ত্রী খাদিজা আক্তার বলেন, ‘আমাদের ছেলেমেয়ে আছে। আমার স্বামী এমন কাজ করতেই পারেন না। ওই শিশুর পরিবারের সঙ্গে আমাদের পারিবারিক নানা বিষয় নিয়ে বিরোধ আছে। এর জের ধরে আমাদের বিপদে ফেলানোর জন্য এ ঘটনা সাজানো হয়েছে।’

ধরমপাশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খালেদ চৌধুরী আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ছয় বছর বয়সী এক শিশুকে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় একটি মামলা হয়েছে। তবে আসামি পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ওই শিশুকে সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন