default-image

যশোর সদর উপজেলা থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার সকালে উপজেলার খোলাডাঙ্গা মুন্সিপাড়া এলাকার একটি ধানখেত থেকে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম বাচ্চু গাজী (৩৫)। তিনি যশোর সদর উপজেলার সতিঘাটা কামালপুরে গ্রামের রবিউল গাজীর ছেলে। বাচ্চু উপজেলার মোবারককাঠি দিঘিরপাড় এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন। তিনি পেশায় লেদমিস্ত্রি ছিলেন।

পুলিশ বলছে, বাচ্চু গাজী মনিরামপুর থানায় দায়ের করা একটি হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। তাঁর বুক, মাথা, পিঠ ও কোমরে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে।
এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বুধবার সকালে সদর উপজেলার খোলাডাঙ্গা মুন্সিপাড়া এলাকার একটি ধানখেতে বাচ্চু গাজীর লাশ পড়ে ছিল। এলাকাবাসীর কয়েকজন লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। এরপর পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহত ব্যক্তির স্ত্রী সালমা বেগম বলেন, ‘আমার স্বামীকে মনিরামপুর থানায় ষড়যন্ত্রমূলক একটি হত্যা মামলায় ফাঁসানো হয়। মঙ্গলবার তিনি সেই মামলায় হাজিরা দিতে যশোরের আদালতে যান। এরপর তিনি বাড়ি ফিরে আসেননি। আজ সকালে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে তাঁর লাশ পেলাম।’

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম দুপুরে বলেন, বাচ্চু গাজী ২০১৮ সালে সংঘটিত একটি হত্যার ঘটনায় হওয়া মামলার আসামি ছিলেন। মঙ্গলবার রাতে দুর্বৃত্তরা হত্যার পর তাঁর লাশ খোলাডাঙ্গা মুন্সিপাড়া এলাকার একটি ধানখেতের মধ্যে ফেলে গেছে। হত্যাকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন