ওই শিশুর নাম আতিক হাসান (৭)। সে উপজেলার গোঁসাইবাড়ি পূর্বপাড়ার কমল হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, যমুনা নদীর অব্যাহত পানি বৃদ্ধির কারণে শিমুলবাড়ি গ্রামের সড়কটি পানিতে ডুবে গেছে। সেখান দিয়ে পানির স্রোত বয়ে যাচ্ছে। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে আতিক হাসান প্রতিবেশী শিশুদের সঙ্গে সেতুর পাশে সড়কের ওপর পানিতে নেমে খেলছিল। এ সময় তীব্র স্রোতের তোড়ে আতিক পানিতে ভেসে যায়। খবর পেয়ে গতকাল ধুনট ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে শিশুকে পায়নি।

ধুনট ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন লিডার হামিদুল ইসলাম বলেন, গভীর পানি ও স্রোত থাকায় শিশুটিকে তাৎক্ষণিকভাবে খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়নি। পরে আজ সকালে রাজশাহী থেকে ডুবুরি দল এসে ওই শিশুকে উদ্ধার করেছে। শিশুটির লাশ উদ্ধার করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন