default-image

ঝালকাঠি নলছিটি উপজেলার বারইকরণ এলাকার সুগন্ধা নদীর চর থেকে রাশেদুল হক নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল রোববার রাত সাড়ে নয়টার দিকে নলছিটি থানার পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে।

রাশেদুলের পকেটে থাকা মুঠোফোনের সিম চালু করে তাঁর পরিচয় নিশ্চিত করে পুলিশ। তিনি নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার সায়দাবাদ গ্রামের মৃত শাজাহান মিয়ার ছেলে। তিনি বরিশালের কালিজিরা এলাকায় অবস্থিত প্রাণ-আরএফএল কোম্পানির ডিপোতে স্টোরকিপার পদে চাকরি করতেন। গত ২৪ জানুয়ারি থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন।

এদিকে গতকাল দুপুর থেকে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত একই স্থানে পড়ে থাকা লাশটি নিয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন নদীতীরবর্তী মানুষ।

বিজ্ঞাপন

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, নদীর চরে লাশ ভেসে আসার খবর একাধিকবার নলছিটি থানায় জানালেও পুলিশ আসেনি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাশটি পড়ে ছিল। পরে ৯৯৯ নম্বরে কল দিলে রাত সাড়ে নয়টার দিকে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।
কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, সকাল ১০টার দিকে নলছিটির মাটিভাঙা এলাকা থেকে একটি লাশ নদীতে ভেসে যেতে দেখেছেন। তাঁরা তখনই পুলিশকে বিষয়টি জানান। মাটিভাঙা থেকে ভেসে সুগন্ধার বারইকরণ চরে এসে আটকে যায় লাশটি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নলছিটি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল হালিম বলেন, লাশের মুখমণ্ডলে রক্তাক্ত আঘাতের চিহ্ন ছিল। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এটি হত্যাকাণ্ড হতে পারে। আজ সোমবার ময়নাতদন্তের জন্য তাঁর লাশ ঝালকাঠি হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন