প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বিকেল পাঁচটার দিকে বনলতা ফিলিং স্টেশন থেকে মোটরসাইকেলে তেল নিয়ে বের হচ্ছিলেন নাসিম খান। এ সময় ফিলিং স্টেশনের পাশেই লাঠিসোঁটা, হাঁসুয়া, কিরিচ ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে থাকা ব্যক্তিরা তাঁর ওপর চড়াও হন। তাঁকে মারপিট করে অচেতন অবস্থায় রেখে চলে যান হামলাকারীরা। তাঁরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করার পরপরই স্থানীয় রোকজন তাঁকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে নিয়ে যান।

আহত নাসিম খানের স্ত্রী সুলতানা পারভীন কাজল বলেন, ‘আমার স্বামী বিএনপির রাজনীতি করেন। এটাই তাঁর অপরাধ। এ কারণে তাঁকে একের পর এক মামলা দিয়ে জর্জরিত করা হয়েছে। এখন তাঁকে মেরে ফেলারও চেষ্টা করা হচ্ছে।’

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনসুর রহমান বলেন, হামলার কারণ জানা যায়নি। হামলার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। হামলাকারীদের পরিচয় নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে।