বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রোববার সরেজমিন হাড়িভাসা ইউনিয়নের সাহেববাজার, গইছপাড়া হাট, জয়গুন মার্কেট ও হাড়িভাসা বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো নির্বাচনী এলাকা। দুপুরের পর থেকে করা হচ্ছে মাইকিং। নানা ছন্দে আর গানের সঙ্গে চলছে প্রার্থীদের প্রচারণা। এ ছাড়া প্রার্থীরা মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ভোট প্রার্থনার পাশাপাশি দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। সেই সঙ্গে প্রার্থীদের কর্মীরাও ভোটারদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে চাচ্ছেন ভোট। বাজারের চায়ের দোকানগুলোতে মানুষের মুখে মুখে শুধুই ভোটের আলোচনা।

ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এই ইউনিয়নে ছয়জন চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেও, ভোটের লড়াই হবে তিনজনের মধ্যে, হবে ত্রিমুখী লড়াই। আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনির হোসেন, বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল হোসেন ও বর্তমান চেয়ারম্যান সাইয়েদ নুর-ই-আলমের অটোরিকশা প্রতীকের মধ্যে হবে লড়াই।

ভোটারদের কাছে তাঁরা তিনজনের কেউই কম নন। তবে তিনজনের মধ্যে প্রতীক নয়, ব্যক্তি দেখেই ভোট দেওয়ার কথা বলছেন তাঁরা। হাড়িভাসা ইউনিয়নের পাহারবাড়ি এলাকার ভোটার মিজানুর রহমান বলেন, এই ইউনিয়নে ভোটের লড়াইটা হবে ত্রিমুখী। তবে মানুষের মধ্যে ভোট দেওয়ার উৎসাহ অনেক। এই ইউনিয়নে এখন পর্যন্ত কোনো গন্ডগোল বা মারামারি নেই। সবাই শান্তিপূর্ণভাবেই প্রচারণা চালাচ্ছেন। তাঁরা শান্তিপূর্ণ ভোট চান।

জিন্নাতপাড়া এলাকার ভোটার সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘এটা তো স্থানীয় সরকার নির্বাচন। এখানে মার্কার গুরুত্ব খুব বেশি নেই। আমরা সাধারণ ভোটাররা প্রার্থীর নীতি-আদর্শ আর ব্যক্তিত্ব দেখেই ভোট দেব।’

হাড়িভাসা ইউনিয়নের মোট ভোটার ১৯ হাজার ৭৯৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৯৪৭ ও নারী ভোটার ৯ হাজার ৮৫২ জন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন