বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা অরুণ কুমার বিশ্বাস জানান, ২৩ অক্টোবর রাতে কালীগঞ্জ শহরের গুলশান মোড়ের এক দোকানমালিক ওই বৃদ্ধকে এনে অজ্ঞাত হিসেবে ভর্তি করে চলেন যান। এরপর আট দিন পার হলেও তাঁর কোনো ঠিকানা মেলেনি। পুরুষ ওয়ার্ডের ৭ নম্বর বেডে অজ্ঞাত হিসেবে তিনি চিকিৎসাধীন।

অরুণ কুমার বিশ্বাস আরও জানান, যখন অজ্ঞাত এই বৃদ্ধকে ভর্তি করা হয়, তখন তাঁর শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। এখন বেশ সুস্থ তিনি। তিনি খেতে পারছেন, নিজে হেঁটে শৌচাগারে যেতে পারছেন কিন্তু তাঁর কথা কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। আবার তাঁর সামনে কাগজ–কলম দিলেও কিছু লিখতে পারছেন না। এ কারণে বৃদ্ধকে নিয়ে তাঁরা বেশ বিপাকে পড়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন