কলমাকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আবুল হাসেম বলেন, গত শনিবার রাত থেকে কলমাকান্দায় পানি কমছে। উপজেলায় প্রায় ৯২ শতাংশ এলাকা নিমজ্জিত ছিল। তবে এখনো প্রায় ৮০ শতাংশ এলাকা পানির নিচে আছে। দুর্গাপুরের ইউএনও রাজীব উল আহসান বলেন, দুর্গাপুরে বন্যার পরিস্থিতি বেশ উন্নতির দিকে যাচ্ছে। পৌর শহরের এখন পানি নেই। তবে গাঁকান্দিয়া, চণ্ডীগড়, বিরিশিরিসহ কয়েকটি ইউনিয়নে পানি ধীরগতিতে নামছে। পানি কমলেও দুর্ভোগ এখনো কমেনি। এই দুই কর্মকর্তা বলেন, ২টি উপজেলায় ৪৮টি আশ্রয়কেন্দ্রে এখনো ৮ হাজার মানুষ রয়েছে।

মদনের ইউএনও বুলবুল আহমেদ বলেন, মদনে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। গোবিন্দ্রশ্রী, তিয়শ্রী, ফতেপুরসহ বেশ কিছু ইউনিয়নের প্রায় ৯৫ শতাংশ এলাকা পানির নিচে।

নেত্রকোনার জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, পানি কমলেও এখনো ৩২৪টি আশ্রয়কেন্দ্রে ১ লাখের বেশি মানুষ আছে। এ ছাড়া তাদের সঙ্গে প্রায় ১৫ হাজারের মতো গবাদিপশুকে নিরাপদ আশ্রয়ে রাখা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন