default-image

নৌকায় আত্মীয়বাড়িতে যাওয়ার পথে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে এক গৃহবধূকে (২৬) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর সহায়তায় রোববার সকালে বোরহান উদ্দিন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বোরহান করিমগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর ইউনিয়নের রৌহা গ্রামের তারা মিয়ার ছেলে।

এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ রোববার দুজনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন। তাঁর স্বামী প্রবাসী। এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, বোরহান উদ্দিন পাশের গ্রামের হওয়ায় তাঁর পরিচিত। প্রায়ই দুজনের মধ্যে মুঠোফোনে কথা হতো। তিনি একই উপজেলার সাগুলী গ্রামে আত্মীয়বাড়ি যাওয়ার জন্য শনিবার বিকেলে বালিখোলা ঘাটে যান। সেখানে বোরহান উদ্দিনের সঙ্গে তাঁর দেখা হয়। বোরহানও সাগুলী গ্রামের আত্মীয়বাড়িতে যাবেন বলে জানান। পরে স্বপন মিয়া নামের এক মাঝির নৌকা ভাড়া করে তাঁরা রওনা হন।

বিজ্ঞাপন

বালিখোলা ঘাট থেকে নৌকাটি ছাড়ার পর সাগুলীর দিকে না গিয়ে সুতারপাড়া খাকশ্রী গ্রামের দিকে গিয়ে ভুষারকান্দা গ্রামের বিলে নিয়ে যায়। সেখানে নৌকার মধ্যে গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন বোরহান। পরে রাত আটটার দিকে ফাজিলখালী বাজারে নৌকা থেকে নামিয়ে একটি অটোরিকশায় তুলে দেওয়ার সময় তিনি চিৎকার শুরু করেন। এ সময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে বোরহান উদ্দিনকে আটক করেন। তবে নৌকার মাঝি স্বপন মিয়া নৌকা নিয়ে পালিয়ে যান। রোববার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ভুষারকান্দা গ্রামের একটি বাড়িতে এলাকাবাসীর হেফাজতে থাকা বোরহান ও গৃহবধূকে থানায় নিয়ে যায়।

করিমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমিনুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রী বাদী হয়ে বোরহান উদ্দিন ও নৌকার মাঝি স্বপন মিয়াকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। এ মামলায় বোরহান উদ্দিনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এ ছাড়া অপর আসামি স্বপনকে গ্রেপ্তার করার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0