বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগের এই নেতা আরও বলেন, ১৬ জানুয়ারি আপনারা নির্ধারণ করবেন আপনাদের ভাগ্য। পবিত্র আমানত আপনাদের হাতে। এই ভোটের আমানতই আগামী পাঁচ বছর কেমন যাবে তা নির্ধারণ হবে। মেয়র আইভী উন্নয়ন করেছেন। আইভীকে নির্বাচিত করলে এই উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে। এই উন্নয়নে আরও গতির সঞ্চার হবে।

সেলিনা হায়াৎ আইভী এই নারায়ণগঞ্জে উড়ে এসে জুড়ে বসেননি উল্লেখ করে জাহাঙ্গীর কবির বলেন, ‘তাঁর বাবা চুনকা ভাই বাংলাদেশের আওয়ামী লীগকে এই নারায়ণগঞ্জে সংগঠিত রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারের দাবিতে তিনি দিনরাত পরিশ্রম করেছেন। সেই চুনকা ভাইয়ের মেয়ে আইভী। গত দুইবার মেয়র হিসেবে তাঁকে নির্বাচিত করেছিলেন আপনারা। আপনাদের পবিত্র আমানত খেয়ানত করেননি। তাঁকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছিলেন। আপনাদের বিশ্বাসের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা সেলিনা হায়াৎ আইভী করেননি। এই বন্দরকে উন্নত করেছেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। সেই আইভী আপনাদের কাছে ভোট চাইতে পারেন না?’

জাহাঙ্গীর কবির বলেন, নির্বাচন এলে এই নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন ধরনের কথাবার্তা আসে। আজকের বিশাল জনসভা প্রমাণ করে দিয়েছে কোনো হুমকি-ধমকি, কোনো মিথ্যাচারের কাছে এই বন্দরের মানুষ হার মানবে না। পরাজিত হবে না। বিজয় হবেই হবে ইনশা আল্লাহ।

সিটি নির্বাচনে লক্ষাধিক ভোটে আইভী বিজয়ী হবেন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির বলেন, ‘অনেকে অনেক কথা বলে। কেউ তো বলতে পারবেন না, সেলিনা হায়াৎ আইভী একজন দুর্নীতিবাজ। তিনি সৎ হৃদয়ের ব্যক্তি। সেই হিসেবে তাঁকে বিপুল ভোটে জয়ী করার দায়িত্ব আপনাদের।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ রশীদের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন কেন্দ্রীয় সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, এস এম কামাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই প্রমুখ। আরও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, সাংসদ নজরুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনসহ অন্যরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন