default-image

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) চলমান নিয়োগ কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হয়েছে। এই নিয়োগ কার্যক্রমে স্বজনপ্রীতি ও বাণিজ্য হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে স্থানীয় সচেতন শিক্ষার্থী ও নাগরিকের ব্যানারে আজ মঙ্গলবার এসব কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় দুমকি উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়। উপজেলা ছাত্রলীগের কর্মী-সমর্থক, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের অংশগ্রহণে বিক্ষোভ মিছিলটি দুমকি উপজেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সবুজ শিকদারসহ ছাত্রলীগের অন্য নেতারা বক্তব্য দেন। স্বজনপ্রীতির নিয়োগবাণিজ্য মানবেন না জানিয়ে তাঁরা নিয়োগপ্রক্রিয়া বন্ধ রাখার দাবি জানান।

বিজ্ঞাপন

দুমকি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সবুজ সিকদার প্রথম আলোকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অবসরে যাওয়ার আগমুহূর্তে পৃথক দুটি বিজ্ঞপ্তিতে বিভিন্ন পদের নিয়োগ কার্যক্রম শুরু করেছেন। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর থেকেই জনৈক প্রভাবশালী শিক্ষকের মেয়েকে শিক্ষক পদে, রেজিস্ট্রার পদে একজন বিভাগীয় প্রার্থী, সেকশন অফিসার পদে জনৈক প্রভাবশালী শিক্ষকের ছেলে ও নিকটাত্মীয়ের নিয়োগ চূড়ান্তের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি বলেন, যদি আগে থেকেই নিয়োগ চূড়ান্ত করা হয়, তাহলে নিয়োগের নামে এভাবে সাধারণ প্রার্থীদের প্রতারণার দরকার কী? আজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে, এতে যদি বিতর্কিত নিয়োগ বন্ধ না হয় তাহলে ভবিষ্যতে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. হারুনর রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ক্যাম্পাসে একটি মিছিলের কথা শুনেছি। নিয়োগের অনিয়মের কথা বলা হচ্ছে। আসলে এখানে নিয়মনীতি অনুসরণ করেই নিয়োগ হবে। অনিয়মের কোনো সুযোগ নেই।’

মন্তব্য করুন