বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মন্ত্রী আরও বলেন, একজন প্রার্থীর জনপ্রিয়তা, তৃণমূলের সিদ্ধান্তসহ নানা দিক বিবেচনা করেই প্রার্থী মনোনয়ন করা হবে। তারপরও কেউ ব্যক্তিগত স্বার্থে দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে বিদ্রোহী বা স্বতন্ত্র প্রার্থী হলে তাঁকে কঠোর শাস্তির মুখোমুখী হতে হবে।

স্থানীয় নেতা–কর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী রাজ্জাক বলেন, ‘তৃণমূলের কর্মী বাহিনী ও তাঁদের ঐক্যই দলের সবচেয়ে বড় শক্তি। দলের গঠনতন্ত্র ও আইন মেনে শৃঙ্খলা ও ঐক্য বজায় রাখতে হবে। আমাদের মনে রাখতে হবে, ধর্মান্ধ ও অপশক্তির বিরুদ্ধে এখনো আমাদের আন্দোলন করতে হয়। এখনো তারা আমাদের, প্রগতিশীল আন্দোলনের মানুষ, বুদ্ধিজীবী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের হত্যা করে। নিজেদের মধ্যে ঐক্য ধরে না রাখতে পারলে তাদের বিরুদ্ধে টিকে থাকা যাবে না। স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি, রাজাকার-আলবদর ও ধর্মান্ধরা আবার দেশ দখল করবে।’

সভায় ধনবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান হারুনার রশিদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর ফারুক আহমাদ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সাখাওয়াত হোসেনসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতা–কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন