বিজ্ঞাপন
খবর পেয়ে পাটগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাফিজুল ইসলাম ও উপপরিদর্শক (এসআই) হাসান নবজাতকসহ দম্পতিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে থানার নারী ও শিশু সেলের জিম্মায় ওই ওই কন্যাশিশুকে রাখা হয়।

খবর পেয়ে লোকজন একনজর দেখার জন্য ওই দম্পত্তির বাড়িতেও আসেন। পরে বিষয়টি থানা–পুলিশকে জানায় স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে পাটগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাফিজুল ইসলাম ও উপপরিদর্শক (এসআই) হাসান নবজাতকসহ দম্পতিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে থানার নারী ও শিশু সেলের জিম্মায় ওই ওই কন্যাশিশুকে রাখা হয়।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওমর ফারুক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, উদ্ধার হওয়া নবজাতকের জরুরি পরিচর্যার প্রয়োজন রয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার মাধ্যমে উদ্ধারকারী দম্পত্তির জিম্মায় শিশুটিকে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। পরে শিশুটির আসল অভিভাবক পাওয়া না গেলে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন