বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রত্যক্ষদর্শী ওই নারী প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাকে দেখে ইলিয়াস খান দৌড়ে পালিয়ে যান। এ ঘটনা আমার সন্দেহ হলে সামনে এগিয়ে দেখি ওই শিশুটি থরথর করে কাঁপছে। এ সময় ইলিয়াস খান কীভাবে ধর্ষণের চেষ্টা করে তা আমাকে বলছিল ওই শিশু।’

শিশুটির মা ও চাচারা বলেন, ‘আমাদের ৯ বছরের শিশুসন্তানকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন ইলিয়াস খান। এ ঘটনা দুই দিন ধরে ধামাচাপা দিয়ে আসছিলেন ইলিয়াস খানের ছেলে, মেয়ে ও জামাতা। তাঁদের কারণে ঘটনার দিন রাতে শিশুটিকে হাসপাতালে নেওয়ার পথ থেকেও ফিরিয়ে আনতে বাধ্য হয়েছি।’

এ বিষয়ে জানতে ইলিয়াস খানের বাড়িতে গিয়ে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে ইলিয়াস খানের ছেলে ও মেয়ে তাঁদের বাবার বিরুদ্ধে আনা ধর্ষণচেষ্টার ঘটনা অস্বীকার করেন। তাঁরা ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার বিষয়টিও অস্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সঞ্জয় মজুমদার বৃহস্পতিবার রাত সোয়া নয়টার দিকে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটির মা বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে এরই মধ্যে একমাত্র আসামি ইলিয়াস খানকে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন