বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রামবাসী জানান, ওই ইউনিয়নের সতহা শালবাগানের মাঝখানে পূর্ব-পশ্চিমের রাস্তার কাছ দিয়ে হেঁটে পূর্ব দিকে যাওয়ার সময় বিকেল প্রায় সাড়ে তিনটার দিকে কয়েকজন গ্রামবাসী গাইটিকে দেখে চিৎকার শুরু করেন। এ সময় শালবাগানের আশপাশের কয়েকজন গাইটিকে ধরার জন্য তাড়া করতে থাকেন।

একপর্যায়ে সেটি দৌড়াতে দৌড়াতে প্রায় দেড় মাইল দূরে মাধবপুর গ্রামের চৌরাস্তায় পৌঁছায়। সেখানে মানুষের ধাওয়া পেয়ে মাধবপুর চৌরাস্তার উত্তর-পশ্চিম দিকে ওই গ্রামের জব্বারের আমবাগানে ঢুকে পড়ে। তখন বিকেল প্রায় চারটা। গ্রামবাসীর ধাওয়া চলছিলই। বিকেল সাড়ে চারটার দিকে বাগানের উত্তর দিকে আমবাগানে গাছ ঘেরা দেওয়া একটি নেটে নীলগাইটি আটকা পড়ে। এ সময় গ্রামবাসী আমবাগানেই গাইটিকে বেঁধে রাখেন।

পীরগঞ্জের চন্দরিয়া বিজিবি ক্যাম্পের জওয়ানরা বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে গাইটিকে চন্দরিয়া ক্যাম্পে নিয়ে গেছেন। বিজিবি দিনাজপুর সেক্টরের চান্দেরহাট কোম্পানি কমান্ডার সুবাদার মফিজুল হক মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বৈরচুনা ইউপি চেয়ারম্যান মো. জালাল উদ্দীন বলেন, বাংলাদেশ-ভারতের কুলাইতোড়, সিদ্ধেশ্বরী সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতের অভয়াশ্রম থেকে নীলগাইটি পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে বলে জানা গেছে। বন বিভাগের লোকজকেও খবর দেওয়া হয়েছে।

চান্দেরহাট বিজিবির কোম্পানি কমান্ডার মফিজুল হক, পীরগঞ্জের ইউএনও রেজাউল করিম ও প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা অমল কুমার রায় আজ পাঁচটার দিকে মাধপুবর গ্রাম পরিদর্শন করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন