default-image

পোস্তদানা মসলার নামে জয়পুরহাট সদর উপজেলার পুরানাপৈল ইউনিয়নের বড় তাজপুর গ্রামের ফসলি মাঠে নিষিদ্ধ পপি চাষ করা হচ্ছিল। আজ রোববার সকালে র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে পপিগাছগুলো কেটে ফেলেছেন।

এ ঘটনায় রাজেন্দ্রনাথ দাস ও নইমুউদ্দিন নামের দুই পপিচাষিকে আটক করেছে র‌্যাব।

আজ সকাল ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতিতে শ্রমিকেরা খেত থেকে পপিগাছ কেটে ফেলছেন। সেখানে উৎসুক লোকজন পপিগাছ কাটার দৃশ্য দেখছিলেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

র‌্যাবের নির্দেশে খেতের পপিগাছ কাটছিলেন রফিকুল ইসলাম। তিনি পুরানাপৈল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) দুই নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য। রফিকুল বলেন, তিন থেকে চার বছর আগে বড় তাজপুর গ্রামে একজন কৃষক এই আবাদ শুরু করেছিলেন। ভারত থেকে এই বীজ আনা হয়েছিল। প্রতি বিঘা জমিতে পাঁচ মণ ফলন হয়। প্রতি মণ ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকায় বিক্রি হয়। ভারত থেকে লোক এসে ফল কিনে নিয়ে যান। বড় তাজপুরে চার থেকে পাঁচজন কৃষক প্রায় ১০ বিঘা জমিতে এই আবাদ করেছেন।

বড় তাজপুর গ্রামের বাসিন্দা কিমল পাহার বলেন, পোস্তদানা মসলার চাষ করা হচ্ছে বলে প্রচার করা হয়েছিল। র‌্যাবের অভিযানে গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। এতে তাঁরা জানতে পারলেন, এখানে পোস্তদানা মসলার নামে নিষিদ্ধ পপি চাষ করা হচ্ছিল।
র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পের কমান্ডার মোহাইমেনুর রশিদ বলেন, নিষিদ্ধ পপিগাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। এ ঘটনায় দুই পপিচাষিকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন