সোনাতলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনহাদুজ্জামান লিটনকে হত্যাচেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছেন মেয়র জাহাঙ্গীর। সম্প্রতি তাঁকে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বগুড়া জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাঁকে শপথ বাক্য পাঠ করান রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার  হুমায়ুন কবীর। এ সময় জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

বগুড়া জেলা কারাগার সূত্রে জানাগেছে, বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের নির্দেশে আধা ঘণ্টার জন্য জেলা কারাগার থেকে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে প্যারোলে মুক্তি দেওয়া হয়। এরপর পুলিশি পাহারায় তাঁকে জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে নেওয়া হয়। শপথ গ্রহণ শেষে জাহাঙ্গীর আলমকে আবার কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে গত ২ নভেম্বর সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহিদুল বারী খান রব্বানীর বিরুদ্ধে নির্বাচন করায় তাঁকে ১ নভেম্বর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। নির্বাচনের পরদিন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিনহাদুজ্জামান লিটন ছরিকাহত হন। উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমসহ ৩০ জনের নামে থানায় মামলা হয়। ৮ নভেম্বর জেলা গোয়েন্দা পুলিশ মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।  এর পর থেকেই কারাগারে জাহাঙ্গীর আলম।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন