বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানিয়েছে, রমজান মাসে মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্রদের কয়েকজনকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেন ওমর ফারুক। ভয়ে ছাত্ররা কাউকে কিছু না বলে ঈদের ছুটিতে বাড়ি চলে যায়। ঈদ শেষে মাদ্রাসা খুললে ছাত্ররা ফিরতে আপত্তি করে।

একপর্যায়ে কারণ হিসেবে অভিভাবকেরা ধর্ষণের বিষয়টি জানতে পারলে তা গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে। তখন গ্রামবাসী ওই শিক্ষককে আটকে করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

বগুড়া সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে আটক মাদ্রাসাশিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন