উপজেলার নয়াগ্রাম-শিমুলতলা দাখিল মাদ্রাসা আশ্রয়কেন্দ্রে ত্রাণ বিতরণ শুরুর আগে বানভাসি লোকজনের উদ্দেশে সিলেটের আঞ্চলিক ভাষায় পরিবেশমন্ত্রী শাহাব উদ্দিন বলেন, ‘আপনারা কষ্টে আছইন, তাই দেখতে আইছি। এই বার বৃষ্টির পরিমাণও বেশি। আপনারা সতর্ক থাকবাইন। বন্যার পানি নামতে দেরি অইব। আবার পানি বাড়তেও পারে। বিদ্যুৎ না থাকলে বিকল্প আলোর ব্যবস্থা করতে হইব। মোবাইল ফোনে চার্জ দিয়া রাখতে হইব। বন্যা মোকাবিলায় সরকারের ব্যাপক প্রস্তুতি রয়েছে। কোনো দরকার পড়লে ওসি, ইউএনও অথবা আমাকে সরাসরি ফোন দিবাইন।’

ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মেহেদি হাসান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোনিয়া সুলতানা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাস, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রতন কুমার অধিকারী, জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সঞ্জয় চক্রবর্তীসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী বিভিন্ন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, পরিবেশমন্ত্রী উপজেলার বন্যাকবলিত ৮৫০টি পরিবারের মধ্যে চাল, ডাল, আলু ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন