default-image

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের কালাপাড়া এলাকায় একটি বন্য হাতির বাচ্চাকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় দুজনের নামে মামলা করেছে বন বিভাগ। এ মামলায় আরও পাঁচজনকে অজ্ঞাত আসামি দেখানো হয়েছে। সোমবার কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জের খুটাখালী বনবিট কর্মকর্তা রেজাউল করিম বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় মামলাটি করেন।

মামলার আসামিরা হলেন হলেন খুটাখালী ইউনিয়নের কালাপাড়া এলাকার মো. জাকেরের ছেলে নাছির উদ্দিন (২৮) ও মিজান উদ্দিন (৩২)।

বন বিভাগ ও মামলার এজাহার সূত্র বলছে, গত শুক্রবার রাতে কালাপাড়া এলাকায় একদল বন্য হাতি ধানখেতে হানা দেয়। এ সময় হাতির দলকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন ধানখেতের মালিক নাছির উদ্দিন ও মিজান উদ্দিন। গুলিতে বন্য হাতির তিন বছর বয়সী একটি মাদী বাচ্চা মারা গেলে ধানখেতের পাশে জঙ্গলের ভেতরে মাটিতে পুঁতে রাখেন। স্থানীয় লোকজন খবর পেয়ে বন বিভাগকে জানালে বন বিভাগ গত ৮ নভেম্বর মাটি খুঁড়ে হাতির মরদেহটি উদ্ধার করেন। এরপর চকরিয়া উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা সুপন নন্দী ও ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের সহকারী ভেটেরিনারি সার্জন মোস্তাফিজুর রহমান নিহত হাতিটির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেন। ময়নাতদন্তে হাতিটির কপালে একটি গুলির চিহ্ন পায় ময়নাতদন্তকারী দল।

বিজ্ঞাপন

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মুহাম্মদ যুবায়ের বলেন, বন্যপ্রাণী হত্যা করে ১৯২৭ সালের বন আইনের ২৬ (১) (খ) ও বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন ২০১২–এর ৩৫ (১) ধারায় দুজনের নামে মামলাটি রুজু করা হয়েছে। এ মামলায় আরও পাঁচ ব্যক্তিকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা (ডিএফও) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘বন বিভাগের তদন্তে প্রাথমিকভাবে দুজনের নাম পাওয়া গেছে। আমরা জানতে পেরেছি, এ ঘটনায় আরও কিছু ব্যক্তি জড়িত রয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মূল ঘটনার রহস্য উদ্‌ঘাটন করবেন।’

মন্তব্য পড়ুন 0