বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহত রবিউল হোসেনের প্রতিবেশী মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, রবিউল উত্তর সোনাপাহাড় এলাকায় অবস্থিত বিএসআরএম ইস্পাত কারখানায় বিভিন্ন পণ্যের সরবরাহকারী হিসেবে কাজ করতেন। রোববার দুপুরে কাজ সেরে কারখানা থেকে বের হন তিনি। এরপর মহাসড়কের পশ্চিম পাশে পার হওয়ার সময় চট্টগ্রামের দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাস ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক মো. কাওছার বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই অংশে সংস্কারকাজ চলায় সোনাপাহাড় এলাকায় ঢাকামুখী লেন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাই চট্টগ্রামমুখী লেনে সব যানবাহন চলছে। রোববার দুপুরে রাস্তা পার হওয়ার সময় ঢাকামুখী ‘তিশা প্লাস’ নামের একটি যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় রবিউল হোসেন নিহত হয়েছেন। স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় বাসটি আটক করা হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যুর বিষয়ে জানতে চাইলে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ফাতেমা মার্জিয়া বলেন, ওই ব্যক্তিকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। তাঁর নাকসহ শরীরের কয়েকটি স্থান থেকে রক্ত ঝরছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন