পরিবারের স্বজনেরা আজ সকাল ১০টার দিকে বাড়ির পাশে বাঁশঝাড়ে রাহুলের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। পরে তাঁরা পুলিশকে খবর দেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাহুল শুক্রবার দুপুরের দিকে নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় গতকাল শনিবার তার বাবা রুবেল দাস সিলেটের জালালাবাদ থানায় সাধারণ ডায়েরি (ডিজি) করেন। আজ সকালে রুবেল দাসের পরিবারের সদস্যরা বাড়ির পাশের বাঁশঝাড়ে শিশু রাহুল দাসের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা সিলেট জালালাবাদ থানা-পুলিশকে বিষয়টি জানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে।

জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজমুল হুদা খান আজ দুপুর ১২টার দিকে বলেন, শিশুটির মরদেহে অনেকটা পচন ধরেছে। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে কি না, জানতে চাইলে ওসি বলেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন