বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শিকদার আজাদ রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুরুল করিম ও সদস্য লিপি খানম, লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুন্সি আলাউদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মশিয়ূর রহমান, সহসভাপতি আশরাফুল আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ এম আবদুল্লাহ ও সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আকরাম আলী এবং যুবলীগের নেতা মো. মহাসীন উদ্দীন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবাস চন্দ্র বোস সভায় বলেন, মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দলীয় সেই প্রার্থীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচন করতে হবে। নেত্রীর দেওয়া মনোনয়নকে অসম্মান করে দলের কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হলে তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে।

সভায় উপস্থিত একাধিক ব্যক্তি বলেন, দলের জ্যেষ্ঠ নেতার সিদ্ধান্ত মনোনয়নপ্রত্যাশীরা মেনে নেন। দলের প্রার্থীর পাশাপাশি স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) প্রার্থী না হওয়ার লিখিত অঙ্গীকার করেন। মনোনয়নপ্রত্যাশীরা বলেন, দল যাঁকে মনোনয়ন দেবে, তাঁরা তাঁর সঙ্গে কাজ করবেন।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নিজাম উদ্দিন খান, সহসভাপতি সৈয়দ আইয়ুব আলী ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রাসেদুল বাসার, লোহাগড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শিকদার আবদুল হান্নান প্রমুখ।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ওয়ালিউল্লাহ বলেন, ২ নভেম্বর লোহাগড়া পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে ইভিএমের মাধ্যমে। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ৯ অক্টোবর, বাছাই ১১ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ অক্টোবর।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন