default-image

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় বিয়েবাড়িতে নাচ–গান নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে মো. সোহেল (২২) নামে এক তরুণকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চর রমণীমোহন ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে ওই যুবককে পিটিয়ে আহত করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে আজ মঙ্গলবার সকালে সোহেলের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আজ বিকেলে রাকিব হোসেন (২২) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নিহত যুবকের বাবা মো. স্বপন গাইন বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা করেছেন। এতে ১১ জনকে আসামি করা হয়।

পুলিশ ও নিহত সোহেলের স্বজনেরা জানান, রোববার রাতে সদর উপজেলার চর রমণীমোহন ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বিয়েবাড়িতে নাচ-গান চলছিল। এ সময় নাচ-গান পছন্দ না হওয়ায় একই এলাকার সুমন হোসেন, মো. দিদার, মো. জুয়েলসহ কয়েকজনের সঙ্গে সোহেলের বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। এর জেরে তারা গতকাল রাতে মজুচৌধুরীর হাট এলাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে সোহেলের ওপর হামলা করে। এ সময় লাঠিসোটা দিয়ে সোহেলকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করা হয়।

পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখান থেকে আজ ঢাকায় নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। নিহত সোহেল পেশায় মৎস্যজীবী (জেলে)। তাঁর মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে গুরুতর জখমের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, বিয়েবাড়িতে নাচ–গান নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে সোহেলকে পিটানো হয়। এতে তাঁর মাথায় জখম হয়েছে। পরে ঢাকায় নেওয়ার পথে সোহেল মারা যায়। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0