বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জিরুয়া গ্রামের বাসিন্দা ও ডমুরুয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক সদস্য জাহাঙ্গীর আলম পাটোয়ারী প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর গ্রামের বাসিন্দা নুরুল হক আমৃত্যু পাড়া-প্রতিবেশীসহ আশপাশের এলাকার মৃত মানুষের জন্য কবর খুঁড়েছেন। গতকাল দুপুরে বেয়াইয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে কবর খোঁড়ার প্রয়োজনীয় উপকরণ নিয়ে পলতি-সাতবাড়িয়া গ্রামে বেয়াইর বাড়িতে যান তিনি। সেখানে গিয়ে নিজেই বেয়াইয়ের কবর খোঁড়েন। বিকেলে জানাজা শেষে ওই কবরে বেয়াইকে দাফন করেন।

জাহাঙ্গীর আলম পাটোয়ারী জানান, বেয়াইর লাশ দাফন শেষে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে একটি ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকে বাড়ি ফিরছিলেন নুরুল হক। পথে স্থানীয় পলতি জামে মসজিদের সামনে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ইজিবাইকটি উল্টে সড়কের পাশের পুকুরে পড়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৯টার দিকে নুরুল হক মারা যান।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, নিহত নুরুল হকের ছোট ভাই আবদুল মমিন (৬৩), মেয়ের জামাই শাহ আলম (৩৫), মেয়ে জাহানার বেগম (২৮) ও নাতি আবু সুফিয়ানকে (৩) প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। মারা যাওয়ার পর পরিবারের সদস্যরা তাঁর লাশ বাড়িতে নিয়ে গেছেন।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী প্রথম আলোকে বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত হওয়ার কোনো ঘটনা স্থানীয়ভাবে কেউ থানায় জানায়নি। পরে ঘটনাস্থল ও ঘটনার কথা জানালে তিনি বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ নেবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন