default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৪০ বছর বয়সী মাখন মিয়ার ওজন ছিল ৩০০ কেজির বেশি। শহরের দক্ষিণ মৌড়াইলের মিলন মিয়ার ছেলে মাখন গতকাল সোমবার রাত ১০টার দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে মারা যান। রাত থেকেই জেলার লোকজন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে মাখনের জন্য নানা ধরনের শোকবার্তা লিখছেন।

মাখনের পরিবার সূত্রে জানা যায়, কয়েক দিন ধরে মাখন শ্বাসকষ্ট ও হৃদ্‌রোগজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। গতকাল রাতে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাঁকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মাখনের মৃত্যু হয়। মাখনের স্ত্রী ও দুই সন্তান আছে।

মাখনের ছোট ভাই সাইফুল ইসলাম বলেন, ২০ বছর বয়স পর্যন্ত তাঁর ভাই স্বাভাবিকই ছিলেন। তারপর হঠাৎ তাঁর ওজন বাড়তে থাকে। জেলায় ২০০ কেজি পর্যন্ত ওজন মাপার যন্ত্র ছিল। এরপরের ওজন মাপার যন্ত্র না থাকায় তাঁরা ওজন মাপতে পারেননি। তবে তাঁর ওজন ক্রমাগত বাড়ছিল। তাঁর ওজন ৩০০ কেজি ছাড়িয়ে যায়। তিনি বলেন, ‘আমার ভাই বাঁচতে চেয়েছিলেন। কিন্তু জীবনযুদ্ধে তিনি হেরে গেলেন।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক শওকত হোসেন বলেন, মাখনের ওজন অনেক বেশি ছিল। শ্বাসকষ্ট ও হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন