default-image

ভারত থেকে অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে দেশে আসা সাত বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ও গত বুধবার রাতে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার তলুইগাছা ও মাদরা সীমান্ত এলাকা থেকে তাঁদের আটক করেছিলেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা।

ভারতে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু প্রতিদিন রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এমন অবস্থায় করোনার ভারতীয় ধরন সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যেই ভারত থেকে আসা এ সাতজনকে কোয়ারেন্টিন কিংবা করোনা পরীক্ষা ছাড়াই আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার রাতে আটক ব্যক্তিরা হলেন সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার গারুরা গ্রামের মো. আজগর আলী (৪৫), স্ত্রী রুবিয়া বিবি (৩৫) ও তাঁদের দুই মেয়ে (বয়স ১৫ ও ৭ বছর)। বৃহস্পতিবার ভোরে আটক হন ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার বক্সী গ্রামের মানিক সরকার (৩২), সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মুকুন্দপুর গ্রামের আতিকুর রহমান (২০) ও যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলার ইছামতী গ্রামের সুবর্ণ বিশ্বাস (৩০)।

বিজ্ঞাপন

সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবির পিআরও মামুন উর রশিদ বলেন, কলারোয়া উপজেলার তলুইগাছা ক্যাম্পের টহল কমান্ডার মো. আবদুল সবুর নেতৃত্বে একটি টহল দল সীমান্তে টহল দিচ্ছিল। বুধবার রাত ১১টার দিকে সাতক্ষীরার সীমান্ত মেইন পিলার ১২/৫ থেকে ১০০ গজ বাংলাদেশের ভেতর চারজনকে দেখতে পেয়ে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তাঁরা বাংলাদেশি। সীমান্ত অতিক্রম করে ভারত থেকে অবৈধভাবে বাংলাদেশে এসেছেন। এ সময় তাঁদের আটক করা হয়।

মামুন উর রশিদ আরও জানান, কলারোয়া উপজেলার মাদরা ক্যাম্পের মো. ফারুক কামালের নেতৃত্বে একটি টহল দল বৃহস্পতিবার ভোরে সীমান্তে টহল দিচ্ছিল। এ সময় সাতক্ষীরা সীমান্তের মেইন পিলার ১৩/৩ এস ৯ আরভি থেকে ৫০ গজ বাংলাদেশের ভেতর তিনজনকে দেখতে পেয়ে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জানতে পারে, তাঁরা বাংলাদেশি। অবৈধভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে এসেছেন। পরে তাঁদের কালোরোয়া থানায় সোপর্দ করা হয়।

করোনা পরীক্ষা কিংবা কোয়ারেন্টিন ছাড়াই কারাগারে পাঠানোর বিষয়ে ৩৩ বিজিবির পিআরও মামুন উর রশিদ বলেন, তাঁরা এ ধরনের কোনো নির্দেশনা পাননি। তাঁরা আসামি আটক করে নিয়ম অনুযায়ী পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন।

কলারোয়া থানার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবীর বলেন, গত বুধবার চারজন ও বৃহস্পতিবার তিনজনকে ভারত থেকে অবৈধ পথে আসার সময় বিজিবি আটক করে তাঁদের কাছে সোপর্দ করে। আইন অনুযায়ী তাঁরা আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন