default-image

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে আজ শনিবার সকালে নিতাই চন্দ্র সাহা (৬৫) নামের একজন ব্যবসায়ী ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন। সকাল পৌনে সাতটার দিকে পৌর শহরের পাওয়ার হাউস-সংলগ্ন এলাকায় তিনি ছিনতাইকারীর কবলে পড়লে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নিতাইয়ের পরিবারের সদস্য ও পুলিশ জানায়, নিতাই বস্তা ব্যবসায়ী ছিলেন। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তিনি ভৈরব বাজারের ডালপট্টিতে বসবাস করতেন। প্রতিদিনের মতো তিনি আজ সকাল সোয়া ছয়টার দিকে হাঁটার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। শহরের পাওয়ার হাউস এলাকা দিয়ে সেতুর পাড়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন ছিনতাইকারী তাঁর গতিরোধ করে। একপর্যায়ে ছিনতাইকারীরা তাঁকে ছুরিকাঘাতে করে সবকিছু নিয়ে পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার আগেই নিতাই মারা যান।

বিজ্ঞাপন

নিহত নিতাই চন্দ্র সাহার ভাতিজা টিটন কুমার সাহা বলেন, ঘর থেকে বের হওয়ার সময় তিনি মুঠোফোন নিয়ে বের হয়েছিলেন। সঙ্গে কিছু টাকাও ছিল। ছিনতাইকারীরা সবই নিয়ে গেছে।

খবর পেয়ে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান ভৈরব থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মতিউজ্জামান। তিনি বলেন, নিতাইয়ের বাঁ ঊরুতে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে।

এদিকে আজ সকালে পৌর শহরের রেলওয়ে এলাকায় মনু মিয়া (৬৮) নামের এক প্রাতর্ভ্রমণকারী ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন। ছিনতাইকারীরা তাঁর হাতে ছুরিকাঘাত করে মুঠোফোন ও নগদ টাকা নিয়ে যান। মনু মিয়া পৌর শহরের ভৈরবপুর উত্তরপাড়ার সামসু মিয়ার ছেলে। মনু মিয়া বলেন, হাঁটার সময় তিনজন ছিনতাইকারী এসে তাঁর গতিরোধ করে। যা ছিল সবই দিয়ে দেওয়ার পরও তাঁর হাতে ছুরিকাঘাত করে ছিনতাইকারীরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন