বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত প্রতিমা রানীর দেবর অনিল চন্দ্র রায় (২৫) প্রথম আলোকে বলেন, আজ সকাল আটটার দিকে প্রতিদিনের মতো ওই কারখানার কয়েকজন শ্রমিক মিলে ব্যাটারিচালিত ভ্যানে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন প্রতিমা রানী রায়। পথে ভ্যানের চাকার সঙ্গে শাড়ির আঁচল পেঁচিয়ে সড়কের ওপর ছিটকে পড়ে আহত হন তিনি। তাঁকে উদ্ধার করে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গোড়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মাহবুব আলী বলেন, ‘ঘটনাটি আমার ইউনিয়নে ঘটলেও তিনি পার্শ্ববর্তী চওড়াবড়গাছা ইউনিয়নের বাসিন্দা। তাঁকে আহত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেন এলাকার লোকজন। পরে জানতে পেরেছি, তিনি মারা গেছেন।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রউপ প্রথম আলোকে বলেন, এ বিষয়ে এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন