জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড উত্তর সোনাপাহাড় দরবার টিলা এলাকার ইউপি সদস্য আশরাফ প্রথম আলোকে বলেন, রাত নয়টার দিকে ইব্রাহিমের পরিচিত কিছু লোকের সঙ্গে দরবার টিলা এলাকায় টাকাপয়সার লেনদন নিয়ে কথা–কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ইব্রাহিম গুরুতর আহত হলে একটি ধানখেত থেকে তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার মধ্যরাতে হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর।

সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতা হত্যার বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নূর হোসেন মামুন প্রথম আলোকে বলেন, ‘ইব্রাহিম হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি আমরা। প্রাথমিক তদন্তে জেনেছি, তাঁর এক আত্মীয়ের সঙ্গে অন্য পক্ষের টাকাপয়সা লেনদেন নিয়ে বাগ্বিতণ্ডায় তিনি উপস্থিত হলে তাঁর ওপর হামলা হয়। হামলার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। এ খুনের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছি আমরা।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন