বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষদর্শী কিশোর সজিব শেখ বলে, মুঠোফোনে অনলাইনে ফ্রি ফায়ার গেম খেলার সময় গেমের মধ্যে হাসান শেখ তাঁর বাড়ি ও স্বর্ণালংকার রক্ষণাবেক্ষণের জন্য টিটু সরদারকে দায়িত্ব দেন। হাসানের বাড়ি গুলি করে উড়িয়ে দেন টিটু সরদার। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটি ও হাতাহাতি হলে কয়েকজন মুরব্বি এসে প্রাথমিকভাবে মীমাংসা করে দেন। এ নিয়ে কিছুক্ষণ পর ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, স্থানীয় লোকজন দুজনকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক কবির সরদারকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত টিটু সরদারের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল ক‌লেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন