বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ২৫ অক্টোবর জাপানের কোবে বন্দর থেকে জাহাজটি মোংলা বন্দরের উদ্দেশে যাত্রা করে। জাহাজটিতে মেট্রোরেলের চারটি বগি ও দুই পাশের দুটি ইঞ্জিন ছাড়াও বিভিন্ন সরঞ্জাম আছে।

শনিবার সকাল থেকে সব মালামাল খালাস শুরু হয়েছে জানিয়ে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দীন বলেন, গত ৩১ মার্চ এমভি এসপিএম ব্যাংকক প্রথম মেট্রোরেলের চারটি কোচ ও দুটি ইঞ্জিন নিয়ে বাংলাদেশে আসে। এরপর ধারাবাহিকভাবে মোংলা বন্দর দিয়ে মেট্রোরেলের ইঞ্জিন, কোচসহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশ আসছে।

এর আগে গত ৫ মে এমভি ওশান গ্রেস জাহাজে দুটি ইঞ্জিন ও চারটি কোচ, ২০ জুলাই এমভি হরিজন-০৯ জাহাজে আটটি বগি ও চারটি ইঞ্জিন, ১২ সেপ্টেম্বর চারটি বগি ও দুটি ইঞ্জিন নিয়ে এমভি প্রেসার্স কোরাল এবং ২ অক্টোবর চারটি ইঞ্জিন ও আটটি কোচ নিয়ে এমভি এসপিএম ব্যাংকক মোংলা বন্দরে ভেড়ে।

মেট্রোরেলের মালামাল নিয়ে আসা জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এনশিয়েন্ট স্টিম শিপ কোম্পানির ব্যবস্থাপক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, জাহাজটিতে চারটি বগি, দুটি ইঞ্জিনসহ বেশ কিছু সরঞ্জাম আছে। চারটি বগি ও দুই পাশে দুটি ইঞ্জিন মিলে একেকটি ট্রেন/কোচ। এ নিয়ে মোংলা বন্দর দিয়ে মোট ছয়টি জাহাজে করে মেট্রোরেলের মোট আট সেট ট্রেন (৪৮টি বগি ও ইঞ্জিন) এবং বিভিন্ন মালামাল দেশে এসেছে।

আগামী মাসে মেট্রোরেলের আরও একটি চালান দেশে আসার কথা। এমভি ব্রাইটলি কোরাল জাহাজে করে আসা বগি-ইঞ্জিন ও যন্ত্রাংশ খালাস করে এগুলো নদীপথে ঢাকার উত্তরার দিয়াবাড়িতে অবস্থিত মেট্রোরেলের ডিপোতে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন