বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর সভাপতি অনুপম সাহা বহিরাগত কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে হোস্টেলে নিজের পক্ষের শিক্ষার্থী ওঠাতে যান। এ সময় সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল হাসানের পক্ষের শিক্ষার্থীরা বাধা দেন। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ ও গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। পরে দফায় দফায় সংঘর্ষ চলে। এতে দুই পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আহত চারজনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রুহিত আকন্দ নামের এক শিক্ষার্থীকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ বলেন, মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে বিরোধের জেরে এ সংঘর্ষ ঘটে। রাত পৌনে নয়টার দিকে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে মেডিকেল কলেজ হোস্টেলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল হাসান মুঠোফোনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘সংঘর্ষের ঘটনা নিজেদের মধ্যে একটি ভুল–বোঝাবুঝি। আমরা নিজেরাই এর মীমাংসা করব।’

সভাপতি অনুপম সাহাকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন