ট্রাকচালক নাইম মিয়া বলেন, ‘আমি শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যালয়ের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলাম। এ সময় পুলিশ এসে আমাকে বিনা কারণে মারধর করে। পরে চালকেরা এগিয়ে এলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। আমাকে মারধরের প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে চালকেরা কারখানা থেকে সার পরিবহন বন্ধ ঘোষণা করেছেন।’

সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর রকিবুল হক বলেন, সার কারখানার শ্রমিকদের দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ওই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ মৃদু লাঠিচার্জ করে। ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে থাকায় কারখানার শ্রমিক ভেবে পুলিশ ভুলক্রমে একজন ট্রাকচালকের ওপর লাঠিচার্জ করে।

তারাকান্দি ট্রাক চালক শ্রমিক ইউনিয়নের আহ্বায়ক আক্কাশ আলী বলেন, ‘পুলিশ এক চালককে মারধর করায় বিচারের দাবিতে আমরা জরুরি সভা ডেকে কারখানা থেকে সার পরিবহন বন্ধ রেখেছি।’

কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জাকির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে কারখানার শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের (সিবিএ) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ট্রাকচালক ও লোডিং শ্রমিককে মারধর করায় সকাল থেকে ২০ জেলায় সার পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন