বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই হিজড়ার নাম লাভলী (৩৫)। তাঁর বাড়ি যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকায়। তাঁর বাবার নাম করিম মিস্ত্রি।

পুলিশ জানায়, লাভলী অপর দুই হিজড়া—নাজমা (৪৩) ও সেলিনার (৪২) সঙ্গে যশোর শহরের ধর্মতলা এলাকায় একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। আজ সকালে তাঁরা তিনজন গ্রামে যাচ্ছিলেন। সকাল সাড়ে আটটার দিকে তাঁরা সদর উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের হালসা এলাকায় সেতুর কাছে পৌঁছান। এ সময় মাস্ক পরা দুই ব্যক্তি এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে লাভলীর গলায় পোঁচ ও পিঠে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যার হাসপাতালে নেন।

মাস্ক পরা দুই ব্যক্তি এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে লাভলীর গলায় পোঁচ ও পিঠে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আহমেদ তারেক শামস বলেন, গুরুতর আহত অবস্থায় লাভলীকে হাসপাতালে আনা হয়। অস্ত্রোপচারের সময় বেলা ১১টার দিকে তিনি মারা যান। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি তাজুল ইসলাম বলেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলায় পোঁচ দিয়ে লাভলীকে হত্যা করা হয়েছে। তাঁর পিঠেও আঘাতের বেশ কয়েকটি চিহ্ন রয়েছে। কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তা উদ্‌ঘাটনে কাজ চলছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নাজমা ও সেলিনাকে থানায় আনা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন