লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, ‘সারা দেশে টিকা কার্যক্রমে মানুষের ব্যাপক সাড়া পড়েছে। আমরা বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, দোকান মালিক সমিতিসহ সবাইকে টিকা নেওয়ার ব্যাপারে অনুরোধ করেছি। কেউ টিকা না নিলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও গণপরিবহন চালাতে পারবেন না। আশা করছি, আজ এক কোটির বেশি টিকা দেওয়া সম্ভব হবে।’ এর সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘আমরা দুই দিন আগে দুবলার চর জেলেপল্লির জেলেদের টিকা দিয়েছি। আমাদের এ টিকা কার্যক্রম চলমান থাকবে।’

default-image

যাঁরা বুস্টার ডোজ নিয়েছেন, তাঁদের আর টিকা নিতে হবে কি না জানতে চাইলে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব স্বাস্থ্যসচিব বলেন, ‘আমেরিকায় লাখ লাখ মানুষ মারা গেছে, ব্রিটেনে লক্ষাধিক, আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে এক লাখ মানুষ মারা গেছে; সেখানে আমাদের মৃত্যু হয়েছে ৩২ থেকে ৩৩ হাজার। পৃথিবীর মধ্যে টিকাদানে আমরা দশম অবস্থানে আছি। এর ফলে করোনার তৃতীয় ঢেউ অমিক্রনে যাঁরা আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁরা অধিকাংশই সুস্থ হয়েছেন। আমাদের দেশের জনসংখ্যা অনুযায়ী পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় মৃত্যুর হার খুবই কম। দুই ডোজ টিকা আমাদের সুরক্ষা দিয়েছে। আমরা আশা করছি, যাঁরা নেননি, তাঁরা আজ টিকা নেবেন। যাঁরা বাদ পড়বেন, তাঁরা টিকার আওতায় চলে আসবেন, নিরাপদ থাকবেন।’ টিকাদান একটি চলমান প্রক্রিয়া উল্লেখ করে তিনি বলেন, যত দিন কোভিড থাকবে, তত দিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী টিকা কার্যক্রম চলবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন