সিলেট শহরতলির বিআইডিসি মীরমহল্লা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আরমান পাইপের কাজ করতেন। তাঁর বাবার নাম ফিরোজ মিয়া। স্ত্রীর সঙ্গে আরমানের বিচ্ছেদ হয়েছে। পরিবারের বরাত দিয়ে এসব তথ্য জানিয়েছে সিলেট মহানগর শাহপরান থানার পুলিশ।

পুলিশ জানায়, আরমানের মায়ের অনুরোধে এলাকার বড় ভাইয়েরা তাঁর সঙ্গে কথা বলতে গিয়েছিলেন। এ সময় কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে ধস্তাধস্তি এবং লাঠি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তবে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত তদন্ত করা হচ্ছে। ওই যুবকদের নাম–পরিচয়ও নেওয়া হচ্ছে।

শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আনিসুর রহমান বলেন, তিনি ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। যুবকের লাশ উদ্ধার করে সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন