default-image

‘অ্যানালাইজার মেশিনের’ মাধ্যমে সব রোগনির্ণয়ের নামে রোগীর সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে মাদারীপুরের শিবচরে এক পল্লিচিকিৎসককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে শিবচর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম রাকিবুল হাসান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এ জরিমানা করেন। এ সময় ওই মেশিনটি জব্দ করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের সূত্র জানায়, শিবচর উপজেলার মুন্সির হাট বাজারে নিরাময় ফামের্সি নামের একটি ওষুধের দোকানে অ্যানালাইজার মেশিনের মাধ্যমে সব রোগনির্ণয় হওয়ার কথা বলে প্রতারণা করা হচ্ছিল। খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় উপজেলা প্রশাসন। এ সময় ওই ফামের্সিতে থাকা পল্লিচিকিৎসক মাসুদ রানকে আটক করে অ্যানালাইজার মেশিনটি জব্দ করে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই পল্লিচিকিৎসককে ২০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করা হয়।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, ওই পল্লিচিকিৎসক অ্যানালাইজার ডিভাইস দিয়ে কম্পিউটারের সাহায্যে রোগীর সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন। চিকিৎসাবিদ্যায় এমন কোনো ডিভাইস নেই। এই পল্লিচিকিৎসকেরা উচ্চমাত্রার ব্যথানাশক ওষুধ প্রয়োগের মাধ্যমে রোগীকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এমন এক পল্লিচিকিৎসককে জরিমান করা হয়েছে। সঙ্গে ডিভাইসটি জব্দ করা হয়। স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0